ব্রাউজিং শ্রেণী

আই এন্ড ইএনটি

নাকের রক্ত পড়া বন্ধে যা করবেন

নাক দিয়ে রক্ত পড়া খুব সাধারণ একটি সমস্যা না হলেও অনেকের ক্ষেত্রেই হয়ে থাকে। আমাদের দেহের নাকের ভিতরের রক্ত প্রবাহের নালীটি খুবই ক্ষুদ্র এবং নাক দেহের সবচেয়ে বেশি সেনসেটিভ অঙ্গ। যখনই নাকের এই রক্ত প্রবাহের নালীতে কোন সমস্যা দেখা দেয় তখনই নাক দিয়ে রক্ত পড়ে, মাঝে মাঝে নাকের দুটো ছিদ্র দিয়েই রক্ত বের হয়ে থাকে। নাক দিয়ে রক্ত প্রবাহের সমস্যা কয়েক সেকেন্ড হতে শুরু করে ১০ মিনিট পর্যন্তও স্থায়ী হয়ে থাকে। এই সমস্যাটি হওয়ার কিছু কারণ হল- মাথাঘোরা, শারীরিক দুর্বলতা, অত্যধিক মানসিক চাপ, মাথায় আঘাত পাওয়া এবং অনেক সময় অজ্ঞান হয়ে গেলেও নাক…

কানে পানি বের করবেন যেভাবে

সাঁতার কাটতে গেলে বা ঝরনার নিচে গোসলের সময় অনেক ক্ষেত্রে হঠাৎ কানে পানি ঢুকে যায়। তবে বেশি পরিমাণে পানি না ঢুকলে তেমন একটা সমস্যা হয় না। কানের ভেতরের ওয়াক্স অল্প পরিমাণ পানি শোষণ করে নেয়। গোসল করতে গিয়ে কানে হঠাৎ পানি ঢুকে কান বন্ধ হয়ে যেতে পারে। কানে পানি থেকে গেলে কান পাকা ও তীব্র ব্যথাসহ নানান রকমের শারীরিক সমস্যার কথা আমার অহরহ শুনে থাকি। কানে বেশি পরিমাণ পানি গেলে সমস্যা হতে পারে। আর কারো কানে যদি ছিদ্র থাকে বা আগে থেকে সংক্রমণ থাকে, তাদের ক্ষেত্রে কানে পানি গেলে সমস্যা হতে পারে। কানে পানি ঢুকলে অনেকে কটন বাড দিয়ে…

নাক ডাকা বন্ধ করবেন যেভাবে

নাক ডাকা অন্যের অশান্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে। আর তার শান্তির ঘুমে যথেষ্ট ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। আপার রেসপিরেটারি ট্র্যাকে এয়ার ভাইব্রেশনের ফলে নাক ডাকে মানুষ। আপনার নাক ডাকা অন্যের অশান্তির কারণ হয়ে উঠতে পারে। আর তার শান্তির ঘুমে যথেষ্ট ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। আপার রেসপিরেটারি ট্র্যাকে এয়ার ভাইব্রেশনের ফলে নাক ডাকে মানুষ। জীবনযাপন পদ্ধতিতে কিছু বদল এনে এই অভ্যেসের পরিবর্তন সম্ভব। ডাক্তার হিমাংশু গর্গের মতে, যাঁরা নাক ডাকেন বেশিরভাগই স্লিপ অ্যাপনিয়া কন্ডিশনে আক্রান্ত। তিনি বল‌েন, ‘‘আপনার সঙ্গীকে খেয়াল করতে বলুন যদি এমন হয়…

আপনার চোখের যত্নে যা করবেন

১. প্রথমেই খাবারের কথা বলতে হয়। খাদ্য তালিকায় প্রচুর মাছ রাখুন। এতে প্রচুর ওমেগা-৩ রয়েছে। ২. চোখের সমস্যা নিয়মিত হলে নিয়মিত বিশেষজ্ঞের কাছে চোখ দেখান। ৩. মাঝে মাঝে চোখ পিটপিট করা চোখের স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো। নিয়মিত চোখ পরিষ্কার রাখুন। প্রতি তিন-চার সেকেন্ডে একবার চোখের পাতা বন্ধ ও খোলার অভ্যাস গড়ে তুলুন। ৪. চোখকে আরাম দিন। যেমন দুই হাতের তালু ঘষে তাপ উৎপন্ন করে তা দুই চোখে ধরুন। এতে চোখ জ্বলা কমে যাবে এবং আরাম বোধ করবেন। ৫. আমরা সাধারণত কাছের বস্তুতে দৃষ্টি দিতে অভ্যস্ত। দূরে দৃষ্টি দিন। হাঁটতে বা বসে দূরে তাকিয়ে দেখার…